মাকড়সার উপকারিতা*।

 

মাকড়সার- উপকারিতার। বর্তমানে মাকড়সা নানা রকমের দেখতে পাওয়া যায় ছোট ছোট দেশীয় মাকড়সা গুলো আমাদের ঘরের আশেপাশে আনাচে কানাচে এবং বনে জঙ্গলে ক্ষেতে-খামারে বাসা বাঁধতে দেখা যায় যার ফলে আমাদের আশেপাশে নানারকম বিষাক্ত কীট পতঙ্গ, মশা, মাছি, ঝুমক, বিষাক্ত ফড়িং উচুঙ্গা নানা ধরনের পোকা যেগুলো আমাদের হাজারো ক্ষতি করে চলেছে প্রতিনিয়ত এই সমস্ত কীটপতঙ্গ গুলো কে মাকড়সা খুব সহজেই দমন করে আমাদের অনেক সাহায্য করছে।

মশা দমনে: মশার অত্যাচারে আমরা প্রায় সকলেই অনেক সমস্যার মধ্যে পড়ে যায় আমরা অনেক সেভ থাকা চেষ্টা করেও সেভ থাকতে পারে না আমরা জানি একটা মশা কতটা ভয়ঙ্কর মূলত নানা রকম ব্যাকটেরিয়া ও ভাইরাসের সংস্পর্শে আসে এরকম মশা যদি আমাদের কামড় দেয় তাহলে দ্রুত শরীর থেকে আমাদের শরীরে ওই ব্যাকটেরিয়া ভাইরাস জীবাণু টি আক্রমণ করতে থাকে এবং আমরা সংক্রমিত হয়ে যায় এবং অনেক প্রবলেমের মধ্যে পড়ে যায়। যদি আমাদের বাড়ির আশেপাশে মাকড়সার জাল বিছিয়ে থাকে তাহলে আমাদের বাড়ি আশেপাশে সহজে মশা দেখা যায় না কারণ মশা মাকড়সার জাল কে অত্যন্ত ভয় পায় মাকড়সার জালে যদি একটা মশা আটকে যায় তাহলে হাজার হাজার মশা সে এলাকা ছেড়ে পালায় এভাবে মাকড়সা আমাদের খুব সহজেই মশার হাত থেকে রক্ষা করে।

টাইফয়েড রোগ: আমরা অনেকেই জানি টাইফয়েড একটি জটিল রোগ এটি মূলত মশা-মাছি কীটপতঙ্গ দ্বারা ছড়ায় টাইফয়েড হলে আমাদের সবসময় ঘুষঘুষে জ্বর জ্বর আসা চর উপরে না থাকলেও ভেতরে হাড়ের মধ্যে দেখা দেয় আমাদের শরীর সবসময় অসুস্থ বোধ করে আস্তে আস্তে শরীর দুর্বল হতে থাকে এই সমস্ত লক্ষণগুলো আমাদের দেখা দেয় টাইফয়েড মূলত মাছির কারণে বেশি হয় তবে আমাদের বাড়ির আশেপাশে যদি মাকড়সার বাসা বাধে তাহলে মাকড়সার জালের তরল টিউরিন গন্ধকের কারণে এখানে সহজে মাছি আসতে চায় না কোন মাসে একবার এসে গেলে এই গন্ধকের নেশায় জালে আটকা পড়ে এবং মারা যায় যার ফলে আমাদের টাইফয়েড রোগ প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে।

শান্তি বজায় রাখতে: বর্তমানে প্রায় সকল পরিবারের অশান্তির ছায়া যেন লেগেই আছে সে নানা কারণে হতে পারে সাংসারিক, অর্থনৈতিকভাবে, ছোটখাটো অশান্তি আমাদের যেন পিছু হটতে চায়না 24 ঘন্টা আমরা নানা রকম অসুবিধার মধ্যে যেন কাটায় তবে বর্তমানে গবেষণায় এবং জ্যোতিষ শাস্ত্রে বলছে যে পরিবারে শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রাখতে এবং সুখে থাকতে মাকড়সার বড় ভূমিকা রাখে যদি আমাদের বাড়ির আশেপাশে এবং বাড়িতে মাকড়সার জাল বিছিয়ে রাখে তাহলে সেই সকল বাড়িতে শান্তি ফিরিয়ে আনতে অনেকটাই কার্য করিতে ভূমিকা রাখে একটি মাকড়সার জাল।

ক্ষেত খামারে: বর্তমানে ক্ষেত-খামারে নানারকম কীটপতঙ্গ ব্যাকটেরিয়া অত্যাচার একটু বেশি হারে দেখা দিচ্ছে এবং আমাদের খেত খামারের ক্ষতি করে চলেছে তার একটা কারণ হল আবহাওয়া পরিবর্তনের ফলে এখন আর ঠিক মত শীতকালে শীত দেখা যায়না না গরমকালে গরম আবার ঠিকমতো ঠিক টাইমে বর্ষা দেখা যায় না এসব আগত কারণে আমাদের ক্ষেত-খামারে নানারকম কীটপতঙ্গ বেশি দেখা দিচ্ছে এবং আমাদের ফসল অতিরিক্ত হারে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে এবং আমাদের অনেক ক্ষতি সাধন করতে হচ্ছে কিন্তু একটি মাকড়সা আমাদের ক্ষেত খামারে অনেকটা সাহায্য করে চলেছে মাকড়সার জালে হাজার হাজার কীটপতঙ্গ মারতে সক্ষম হয় যার ফলে আমাদের ফসল কিছুটা হল ক্ষতিগ্রস্ত হাত থেকে রক্ষা পায় এবং ফলন ভালো হয়।

অগ্ৰগতীর দূত: বর্তমানে বড় বড় গবেষকরা এবং জ্যোতিষ শাস্ত্ররা বলেছেন যে মাকড়সা হলো প্রগতির বা আগ্ৰগতির দূত আমাদের সমাজ কে দ্রুত উন্নতির শিখরে পৌছে দিতে সাহায্য করে আমাদের নিজেদেরকে উন্নতির শিখরে তুলতে সবথেকে বড় সাহায্য করে গবেষকরা বলছেন যে যেসকল বাড়িতে মাকড়সার নতুন নতুন বাসা দেখা দেয় বা মাকড়সা নতুন নতুন বাসাবাধতে থাকে সে সকল বাড়িতে শুধু উন্নতি হতে থাকে ব্যবসা-বাণিজ্যে, ক্ষেতে-খামারে, টাকা-পয়সায় , কাজকর্মে সাংসারিক জীবনে সব জায়গাতে উন্নতি দেখা দেয় এইজন্যেই গবেষকরা মাকড়শাকে অগ্রগতির দূত বলে থাকেন।






















একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

নবীনতর পূর্বতন